মাশরাফির অলরাউন্ড পারফরম্যান্সে আবাহনীর জয়

ঢাকা প্রিমিয়ার লীগের ২য় রাউন্ডের খেলায় নিজেদের ২য় জয় পেয়েছে আবাহনী।

শুক্রবার বিকেএসপির তিন নম্বর মাঠে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শান্ত এবং মাশরাফির অর্ধশতকের উপর ভর করে ২১৭ রান তুলতে সক্ষম হয় আবাহনী। জবাবে মাশরাফির দুর্দান্ত বোলিংয়ে মাত্র ১৮১ রানেই অলআউট হয় কলাবাগান ক্রিড়া চক্র।

এদিন প্রথমে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই সাইফ হাসান এবং আনামুলের উইকেট খুইয়ে বিপদে পড়ে যায় আবাহনী। সেখান থেকে দলকে টেনে তোলার কাজটা করতে থাকেন নাজমুল হোসেন শান্ত। তবে তার ৫৫ রানের পরও ৩০ ওভারে ১০৫ রান তুলতে ৬ উইকেট হারিয়ে ফেলে আবাহনী। সেখান থেকে দলকে লড়াইয়ের পুঁজি এনে দেন মাশরাফি ও মোসাদ্দেক হোসেন। মাশরাফি ৩টি ৪ এবং ৫ ছক্কায় ৫৪ বলে করেন ৬৭ রান, অন্যদিকে মোসাদ্দেকের ব্যাট থেকে আসে ৪০ রান। ৪৭ রানে ৩ উইকেট নিয়ে কলাবাগানের সেরা বোলার মুক্তার আলী। দুটি করে উইকেট নেন যতিন সাক্সেনা, আবুল হাসান ও শাহাদাত হোসেন।

ছোট পুজি তাড়া করতে নেমে তাসকিন এবং ম্যাশের বোলিং তোপে পড়ে দিশেহারা কলাবাগান। মাত্র ৩৩ রানে ৩ টপ অর্ডার ব্যাটসম্যান যখন প্যাভিলিয়নে তখন দলকে বাচানোর দায়িত্ব নেন আশরাফুল, তবে সাকলাইন সজীবের বলে নাসির হোসেনের কাছে ক্যাচ দিলে ম্যাচে ফেরা কঠিন হয়ে পড়ে কলাবাগানের জন্য। শেষ চেষ্টা করেন মুক্তার আলী এবং মাহমুদুল হাসান। তবে ররানে গতি বাড়ানোর চেষ্টায় নিয়মিত উইকেট হারায় দলটি। সর্বোচ্চ ৪০ রান করা মুক্তার ফিরে যান রান আউট হয়ে। মাহমুদুল হাসান করেন ৩৮ রান। কলাবাগানের ইনিংস থামে ১৮১ রানে। দুই ম্যাচে দলটি পেল টানা দ্বিতীয় হারের স্বাদ। ব্যাটিংয়ে ৬৭ রান এবং বল হাতে ৪ উইকেট নিয়ে ম্যাচ সেরা হন মাশরাফি।

তোফায়েল আহমদে খান (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *