মারিন সিলিচের লক্ষ্য র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠা

ক্রোয়েশিয়ান এই তারকা ২০১৮ সালের অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে রানার্সআপ হওয়ার গৌরব অজর্ন করে।

২৯ বছর বয়সী এই তারকা সর্বশেষ প্রকাশিত র‍্যাংকিং অনুযায়ী ৩ নম্বরে আছেন। র‍্যাংকিংয়ে ১ নম্বরে আছেন রাফায়েল নাদাল এবং ২ নম্বরে আছেন ২০১৮ সালের অষ্ট্রেলিয়ান ওপেনের শিরোপাজয়ী রজার ফেদেরার। ফাইনালে এই ফেদেরারের কাছে হেরে শিরোপা হাতছাড়া করে সিলিচ।

সিলিচের মতে, “ফেদেরার র‍্যাংকিংয়ে উপরে আছেন, কারন সে জানে কি করে নিজের স্থান ধরে রাখতে হয়। সে অনেক কষ্ট করে এখানে আসতে পেরেছে। আমিও চেষ্টা করছি তার মতো হওয়ার জন্য।“ ফেদেরারের সাথে সিলিচের পয়েন্ট ব্যবধান অনেক বেশি।  তাই সিলিচ মনে করেন সেও একদিন না একদিন র‍্যাংকিংয়ে  ১ নম্বরে উঠে আসবে। কিন্তু তার সামনে অবস্থান করছে বর্তমান সময়ের বিশ্বের সবচেয়ে সেরা দুই তারকা রাফায়েল নাদাল ও রজার ফেদেরার। তাদের দুজনকে ডিঙিয়ে র‍্যাংকিংয়ে ১ নম্বরে উঠা অতটা সহজ নয়, তাই তাকে অসাধারণ টেনিস খেলতে হবে।

সিলিচ জানান, “আসলে আমার মূল টার্গেট র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠে নিজের সামর্থ্যের  প্রমাণ দেয়া, যার জন্য আমি পরিশ্রম করছি। গত ১-২ বছর ধরে আমি অনেক পরিশ্রম করেছি, তার ফলও পেয়েছি,অনেকগুলো টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলেছি। গত বছরে আমি  র‍্যাংকিংয়ে অনেক উন্নতি করেছি, গত কয়েকমাসে আমি অনেক ভালো টেনিস খেলেছি।”

তিনি আরো জানান, “বছরের প্রথম গ্রান্ড স্লামের ফাইনাল খেলাটা সহজ ছিলোনা। বছরটা দারুনভাবে শুরু করেছি, আরো ভালো হতো যদি অষ্ট্রেলিয়ান ওপেন জিততে পারতাম। আমি খুশি নাদালকে কোয়ার্টার ফাইনালে পেয়ে, তার সাথে ম্যাচে নাদালের ইনজুরির কারনে ম্যাচ জিততে না পারলেও খুব ভালো ম্যাচ হয়েছে। তারপরে ফাইনালে ফেদেরারের সাথে ম্যাচটা খুব ভালো হয়েছিল, শেষ পর্যন্ত নিজের ফর্ম ধরে রাখতে পারিনি। ফেদেরার ও নাদাল ছাড়াও জকোভিচ ও মারের মতো প্লেয়াররা আমাকে চ্যালেঞ্জ জানাতে প্রস্তুত। আমার জন্য ভালো খবর যে আমি ফর্মে আছি, এই ফর্ম ধরে রাখার চেষ্টা করবো।“

আরমান হাসান (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "মারিন সিলিচের লক্ষ্য র‍্যাংকিংয়ের শীর্ষে উঠা"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*