একটা শতক পাওয়ার আক্ষেপ রয়েই গেলো তামিমের

সহজ আরেকটা জয় বাংলাদেশ দলের। আগের দুই ম্যাচের নায়করাই এই দুই ম্যাচের নায়ক।

২১৭ রানের মধ্যে তামিমের ৭৬ রান ও সাকিবের ৫১ রান। তারপরও বড় একটা স্কোর করার আক্ষেপ রয়ে গেছে তামিমের।

“আপনারা দেখেছেন উইকেটে ব্যাট করাটা সহজ ছিলো না। তারপরও আমি আর সাকিব ভালোই ব্যাট করেছি কিন্তু আমার আরো কিছুক্ষন খেলার দরকার ছিলো আর তাতে দলের রানও হয়ত ২৩০ ছুতে পারতো।“ বলেছেন বাংলাদেশ দলের ওপেনার তামিম ইকবাল।

তিনি আরো বলেছেন, “ফিল্ডিং এ নেমে আমরা তাড়াতাড়ি ৩ উইকেট পেয়েছি যা আমাদের কনফিডেন্স বাড়িয়ে দিয়েছে। এরপর একে একে উইকেট পতনে তারা আর ঘুরে দাড়াতে পারেনি।”

রুবেলের ছক্কা নিয়ে ফর্মে থাকা বাংলাদেশ দলের এই ব্যাটসম্যান  বলেন, “তার এই ছক্কার পর যে ইমপ্রেশনটা করেছে সে তা যে কতদিন সমালোচিত হতে থাকবে কে জানে।“

বাংলাদেশের বিপক্ষে জিতলে ফাইনালে যাওয়ার দারুণ সুযোগ ছিল জিম্বাবুয়ের জন্য। টসে হেরে বল করতে হলেও দারুণ শুরু করেছিলেন তারা।

২১৬ রানে টাইগারদের আটকে রাখে জিম্বাবুয়ানরা।  ১২৫ রানে অলআউট হয়ে ৯১ রানে হেরে গেছে ছফরকারিরা।  তাদের এই হারের জন্য বাংলাদেশের বোলিং নয় বরং নিজেদের ভুলকে দায়ী করেছেন জিম্বাবুয়ে অধিনায়ক।

“উইকেট বেশ ছিলো। টসটা অত গুরুত্বপূর্ণ ছিল না। আমরা বল হাতে দারুণ করেছিলাম। বিশেষ করে সাকিব-তামিমের আউটের পরে। ওরা আমাদের আউট করেনি বরং আমরা তাদের উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছি।“

আগামী বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ-শ্রীলংকার ম্যাচে নির্ধারণ হবে ফাইনালে কারা বাংলাদেশকে চ্যালেঞ্জ জানাবে। তাই শুভকামনা বাংলাদেশের জন্য জানিয়েছেন ক্রিমার।

এই ম্যাচে জয়ের মধ্যদিয়েও বোনাস পয়েন্ট পেয়েছে বাংলাদেশ।

ফাইনাল হবে ২৭ জানুয়ারি শনিবার।

কামরুল হাসান শিবলী (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "একটা শতক পাওয়ার আক্ষেপ রয়েই গেলো তামিমের"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*