শিরোপা জেতা বাংলার কিশোরীদের সাকিব-মাশরাফিদের অভিনন্দন

প্রথমবারেই বাজিমাত করা বাংলার মেয়েদের কারা প্রশংসায় ভাসায়নি?

প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী, বাফুকে সভাপতি, জাতীয় দলের ফুটবলার থেকে শুরু করে বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তসহ সবাই। তাহলে ক্রিকেটাররা কেন বাদ থাকবেন? ক্রীড়াঙ্গনে আন্তর্জাতিক সম্মান বয়ে আনার কাজটা এতোদিন করে দেখাতো সাকিব-মাশরাফিরা। তাহলে প্রশংসা জানানোর ক্ষেত্রে তারা বাদ থাকবেন তা কি হতে পারে?

২০১৫ সালে ক্রিকেটে বাংলাদেশের সাফল্যের গল্প যার জাদুর ছোয়ায় এসেছে তার নাম হলো বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়ক মাশরাফি বিন মোর্তুজা। একদিনের ম্যাচে প্রথমবারের মত বাংলাদেশকে র‍্যাংকিংয়ে সর্বোচ্চ ৬য়ে নিয়ে যাওয়ার পিছনে যে মানুষটা পুরো দলকে এক সুতায় গাথতে পেরেছিলেন সে হলো ম্যাশ। তবে এবার তিনি প্রশংসার জোয়ারে ভাসালেন বাংলার মেয়ে ফুটবলারদের। ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম তাঁর ফেসবুক পেজে লিখেছেন, ‘ভারতকে হারিয়ে আজ অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হলো বাংলাদেশ। কত বাধা পাড়ি দিয়ে এসে নিজেকে একজন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে তৈরি করা যায়, তা এই বিজয়ী মেয়েদের জীবনগল্পের প্রতিটি প্যারাতে লেখা।’ এরপর ইংরেজিতে পুরো দলকে অভিনন্দন জানিয়েছেন দেশের ক্রিকেটের অঘোষিত চ্যাম্পিয়ন।

টুইটারেও তিনি শুভেচ্ছা জানিয়ে তিনি লিখেছেন, “Congratulations to #Bangladesh women’s football team for becoming unbeaten champion in the #SAFFu15WomensChampionship2017‘ . They beat India by 1-0 in the final.”

বাদ থাকেনি বাংলার প্রান সাকিব আল হাসান।তাঁর অফিশিয়াল পেজের পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘বাংলাদেশের মেয়েদের অসাধারণ এক শিরোপা অর্জন! মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ ফুটবল চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে ভারতকে হারিয়ে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দলকে জানাই প্রাণঢালা অভিনন্দন।’

জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের এমন শুভকামনায় নিশ্চয়ই আরো উজ্জীবিত হয়ে সামনের টুর্নামেন্টগুলোতে এমনি ভাবে দেশের মুখ উজ্জ্বল করবে এমনি প্রত্যাশা বাংলাদেশের ফুটবল ভক্তদের।

তোফায়েল আহমেদ খান (প্রতিবেদক)মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "শিরোপা জেতা বাংলার কিশোরীদের সাকিব-মাশরাফিদের অভিনন্দন"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*