২৪ তারিখে ৩০ সদস্যের প্রাথমিম দল ঘোষণা করবে বিসিবি

আসন্ন ত্রি দেশীয় ও শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজের জন্য রোববার ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষনা করবে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

দক্ষিণ আফ্রিকা সফর শেষে প্রায় মাস দুয়েক কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলেনি টাইগাররা। মাঝে অবশ্য মাসখানেক বিপিএলে অংশগ্রহন করেছিলো, তবে সেটাতো ছোট ফরম্যাটের টুর্নামেন্ট মানে টি২০। বাংলাদেশ এমনিতে টেষ্ট খেলার তেমন একটা সুযোগ পায়না। ফলে মাঝেমাঝেই এমন গ্যাপের মধ্যে পড়ে যায়। অবশ্য নতুন এফটিপিতে বাংলাদেশের টেষ্টের সংখ্যা বাড়ছে, এটা যেমন ভক্তদের জন্য সুখবর, আবার প্রত্যাশার চাপটাও খাকবে টাইগারদের উপর।

সামনেই রয়েছে ঘরের মাটিতে শ্রীলংকার বিরুদ্ধে দ্বিপাক্ষিক সিরিজ এবং ত্রিদেশীয় টুর্নামেন্ট। কাজেই সবদিক বিবেচনা করেই নির্বাচক প্যানেল সেই অনুযায়ী টিম সিলেকশনে ব্যস্ত। অবশ্য দল নির্বাচনের হোম ওয়ার্ক আগেই সেরে রেখেছেন নান্নু বাসাররা। যেহেতু এবার আগের মত টিম সিলেকশনে হাথুরুর সরাসরি হস্তক্ষেপ থাকছে না, তাই মোটামোটি স্বাধীনভাবেই দল গোছানো প্রক্রিয়া চালাচ্ছেন।

রোববার ২৪ ডিসেম্বর ৩০ সদস্যের প্রাথমিক দল ঘোষনা করা হবে। তাই শেষ মুহুর্তে ৩০ সদস্যের দলটা আরো একটু গুছিয়ে নিতে, এনসিএলে পাখির চোখ নির্বাচকদের। নান্নু-বাশারদের সেই কাজটা কঠিন করে দিচ্ছেন অনেকেই ব্যাটে-বলে পারফর্ম করে। নির্বাচক হাবিবুল বাশার জানিয়েছেন দল নির্বাচনে এবার আর অটোমেটিক চয়েস নয়, বরং ঘরোয়া লীগের পাফরমারদেরকেও দেখা যেতে পারে প্রাথমিক সিলেকশনে।

তবে কাজটা অত সহজ হচ্ছে না। কারন এনসিএলের শুক্রবারের ম্যাচে ঘরোয়া ক্রিকেটের বেশ কিছু পরীক্ষিত ক্রিকেটার দুর্দান্ত পারফরমেন্স করেছেন। তাই নির্বাচকরা পড়েছেন মধুর সমস্যায়। এই যেমন নির্বাচকদের সামনে দেড়শো রানের ইনিংস হাকালেন তরুণ মেহিদি হাসান। যিনি কিনা বিপিএলে হিরো ছিলেন বল হাতে । অন্যদিকে জাতীয় দলে ব্রাত্য এনামুল বিজয় বাটের ঝাঝ দেখাচ্ছেন টি-২০ থেকে সাদা পোষাকেও, নাসিরের ব্যাট থেকে এসেছে দ্বি শতক।

হাবিবুল বাসার জানান,”আমরা দলের মধ্যে একটা কমপিটিশন চাই সবসময়, এবং দলের মধ্যে সবাই বুঝতে পারে যে দলের বাইরে কারা পারফর্ম করছে। এই চাপটাই চাই আমরা এবং এই চাপটা খুব গুরুত্বপূর্ন। অটোমেটিক চয়েজ কখনই আমরা চাইনা। আমরা চাই সবার মধ্যে প্রতিদ্বন্দিতা হোক এবং সেখান থেকে সেরা দলকে বাছাই করে নিতে চেষ্ঠা করবো।“

এবার নির্বাচকদের জন্য আরেকটা স্বস্তির খবর হচ্ছে দল বা দলের  বাইরে নেই তেমন কোন ইনজুরি। তাইতো সেরা দল বাছাইয়ের ব্যাপারে বেশ আশাবাদী নির্বাচক থেকে ক্রিকেট সংশ্লিষ্ঠ সবাই। তবে বাসার জোড় দিতে চাচ্ছেন সবার মতামত নিয়েই দল সাজাতে।

“কোচ এবং অধিনায়কের মতে গুরুত্বের সাথেই নেয়া থাকে, সবসময়ই নেয়া হয়েছে, এটা নতুন কিছু নয়, এবারও দল যখন করবো তখন সবার মতামত নিয়েই দল সাজাবো।“

হয়তো টেষ্ট বা ওয়ানডেতে তেমন বড় কোন পরির্বতন হবেনা। তবে বিপিএলে পারফর্ম করা ক্রিকেটার  আফিফ-মেহিদি কিংবা আবু জায়েদ-রাহিদের মত নতুন মুখের দেখা মিলতে পারে টি-২০ সিরিজে।

তোফায়েল আহমেদ খান (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *