নতুন ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রামে বিগ থ্রীর পরেই বাংলাদেশ

ফেব্রুয়ারীতে আইসিসির নতুন এফটিপি অনুমোদন পেলে ২০১৯ খেকে ২০২৩ সাল পর্যন্ত ৩৫টি টেস্ট এবং ৪৫টি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ যা কিনা ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের পরই সর্বাধিক।

এর মধ্যে থাকবে ভারতের সাথে হোম এন্ড এওয়ে সিরিজ। ২০১৯ সালে ভারতের মাটিতে টেষ্ট এবং ওডিআই সিরিজ খেলবে টাইগাররা। অন্যদিকে ২০২২-২৩ এ ভারত আসবে বাংলাদেশে ফিরতি লীগ খেলতে।

এই এফটিপি ট্যুরে বাংলাদেশ মোট ৩৫টি টেষ্ট, ৪৬টি ওডিআই এবং ৪২টি টি-২০ খেলবে। মূলত ওডিআই এবং টেষ্ট চ্যাম্পিয়ানশীপকে লক্ষ্য করেই প্রস্তুত করা হচ্ছে এই প্রোগ্রাম। ২০২০ থেকে ২০২২ সালের ওয়ানডের ফলাফলের উপর ভিত্তি করেই নির্ধারিত হবে ২০২৩ সালের বিশ্বকাপের দল।

টেষ্ট:

২০১৯-২০২৩ এই ৪ বছরে ৩৫টি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। বর্তমান সূচিতে ৫ বছরে ৩৩ টেস্ট খেলছে বাংলাদেশ। অর্থাৎ নতুন সূচিতে বছরে ২টি করে বাড়তি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। টেস্ট ম্যাচের সংখ্যায় বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে আছে তিন মোড়ল। নতুন সূচিতে দক্ষিণ আফ্রিকাও বাংলাদেশের চেয়ে ৩ টেস্ট কম খেলছে ।

ওয়ানডে:

ওয়ানডেতে প্রতি দুই বছরে ১২ দলের যেকোনো আটটি দলের সঙ্গে সিরিজ খেলা হবে প্রতিটি দেশের। এ সূচি প্রযোজ্য হবে ২০২০ সালের মে মাস থেকে  । এ পদ্ধতিতে পাওয়া পয়েন্টের ভিত্তিতে বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে দলগুলোকে। এ সূচিতে সবচেয়ে বেশি ৬২টি ওয়ানডে খেলবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ। বাংলাদেশ খেলবে ৪৫টি ওয়ানডে । ভারতের খেলবে ৬১টি ওয়ানডে।

টিটোয়েন্টি

নতুন সূচীতে প্রতিটা দলই সমসংখ্যক টি-টোয়েন্টি খেলবে । সবচেয়ে বেশি ৬১টি টি-টোয়েন্টি খেলবে ভারত। দক্ষিণ আফ্রিকা ও শ্রীলঙ্কার সমান ৪২টি ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

তোফায়েল আহমেদ খান (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "নতুন ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রামে বিগ থ্রীর পরেই বাংলাদেশ"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*