মাহমুদা আক্তার- একজন প্রতিশ্রতিশীল গোলকিপার

সম্প্রতি থাইলান্ডে শেষ হওয়া মহিলা চ্যাম্পিয়নশীপে বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব–১৬ দল তিনটি ম্যাচে হারলেও তাদের খেলা থেকে স্পষ্ট প্রকাশ পেয়েছে যে বাংলাদেশ সঠিক পথেই এগিয়ে যাচ্ছে।

গোলকিপার মাহমুদা আখতার তার অসাধারন পারফরমেন্স দ্বারা তা ভালো ভাবেই প্রমান করতে পেরেছেন। উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে বাংলাদেশ প্রথমে ৯ গোলে পিছিয়ে থাকলেও গোলকিপার মাহমুদা খুব নৈপুণ্যতার সাথে কিছু গোল প্রতিরোধ করেন যা সবার নজর কেড়েছে। তার এই পারফরমেন্স দলকে গ্রুপ বি এর ফাইনালের প্রথম সারিতে জায়গা করে দেয়। মাহমুদা উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে বিকল্প গোলকিপার হিসেবে খেলেছিলেন। এবং সেই ম্যাচে তার অসাধারন পারফরমেন্সের জন্য তিনি জাপান এবং অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধেও খেলার জন্য জায়গা করে নেন ।
বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব–১৬ দলের ১৪ বছর বয়সী এই গোলকিপারের গ্লাভসের বিষ্ময়কর পাফরমেন্সের কারণে জাপান মাত্র ৩ টি গোল দিতে পেরেছে। তার এই দুর্দান্ত খেলার জন্যঅস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে বাংলাদেশ জয়ের দ্বার প্রান্ত থেকে ফিরে আসে।অধিনায়ক কৃষ্ণা রানীর লাল কার্ড পাওয়ায় বাংলাদেশের জন্য জয় পাওয়াটা আরও কঠিন হয়ে যায়। পরে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ২-৩ গোলে পরাজিত হয় বাংলাদেশ।
থাইল্যান্ডের টুর্নামেন্টে মাহমুদা আখতার নিঃসন্দেহে বাংলাদেশের সেরা খেলোয়াড় ছিলেন । গ্রুপ বি এর ২য় ম্যাচ থেকে জাপানের বিপক্ষে প্রথম খেলা শুরু করেন মাহমুদা আখতার। উত্তর কোরিয়ার কাছে পরাজয়ের পর জাপানের বিরুদ্ধে দ্বিতীয় অর্ধে মাহমুদাকে অসাধারন কয়েকটি গোল থেকে দলকে রক্ষা করতে দেখা যায়। এবং ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধের তার পারফরমেন্স দলের মনোবল আরও বাড়িয়ে দেয়।
ময়মনসিংহে একটি দরিদ্র কৃষক পরিবারে জন্ম মাহমুদার। তারা মোট ৫ ভাই বোন। সে কলসিন্দুর হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের ছাত্রী। বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল টিমের জন্য মাহমুদা সর্বাত্মক ভালো খেলা করার চেষ্টা করে যেতে চান।
এই খেলায় যেখানে পা সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ন সেখানে মাহমুদার হাতই ফুটবল বিশ্বে বাংলাদেশকে অনেক উপরে নিয়ে যাবে এবং বাংলাদেশ দলের গোলপোস্টকে রক্ষা করবে।

মানিক ইমদাদ (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "মাহমুদা আক্তার- একজন প্রতিশ্রতিশীল গোলকিপার"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*