ভদ্র ক্রিকেটারের অভদ্র কান্ড

ক্রিকেটকে ‘ভদ্রলোকের খেলা’ বলা হয়। সত্যিকার অর্থেই এই খেলাটি খুবই প্রফেশনালভাবে এবং প্রতিদ্বন্দ্বীদেরকে অনেক সন্মান দেখিয়ে মোকাবেলা করতে হয় প্রত্যেক দলকে।

বেশ কিছু উদাহরণ রয়েছে যেখানে ক্রিকেটাররা  তাদের সীমা  অতিক্রম করে, কখনও কখনও এ খেলায় অনেক বিতর্কের জন্ম দেয় আবার কখনো এটি খুব খারাপ পরিস্থিতির সৃষ্টি  করে। বেন স্টোকসের সাম্প্রতিক ঘটনা  ক্রিকেট মহলে ব্যাপক সমালোচিত হয়েছে। এখানে ৫ টি উদাহরণ রয়েছে যেখানে ক্রিকেটারদের আক্রমণের  কারনে অভিযুক্ত করা হয়েছে।

লুক প্রমার বাচ

আইপিএল -২০১২ এর সময় অস্ট্রেলিয়ার লুক প্রমার বাচ  একটি বিতর্কের সৃষ্টি করেছিলেন। তিনি রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরু (আরসিবি) এর প্রতিনিধিত্বকারী খেলোয়াড় ছিলেন । একজন আমেরিকান নারীকে যৌন নির্যাতন ও তার বাগদত্তাকে মারধর করার অভিযোগ ওঠে তার বিরদ্ধে।

মহিলা অভিযোগ করেন যে লুক প্রমার বাচ তার কয়েক বন্ধুদের সঙ্গে পানীয় পান করার জন্য ঐ দম্পতিকে  আমন্ত্রণ জানিয়েছিলো। এক পর্যায়ে ঐ নারীর সাথে খারাপ ব্যাবহার করে এবং তার বাকদত্তা তাকে বাধা দিলে লুক তাকে মারধর করে। পরে তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

২০০৭ সালে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার জন্য তিনি একমাত্র আন্তর্জাতিক টি -২০ ম্যাচ খেলেছিলেন।

রুবেল হোসেন

বাংলাদেশের ফাস্ট বোলার রুবেল হোসেন অভিনেত্রী বান্ধবী নাজনিন আক্তার হ্যাপিকে আক্রমণ ও ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হন। অভিনেত্রী হ্যাপি  অভিযোগ করেন রুবেল তাকে বিয়ের মিথ্যা প্রতিশ্রুতি দিয়ে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেছিল এবং পরে তাকে বিয়ে করতে অস্বীকৃতি জানায়।হ্যাপির অভিযোগে রুবেলকে পুলিশ হেফাজতে নেয়া হলেও আইসিসি ২0১৫ বিশ্বকাপের জন্য তাকে জামিন দেওয়া হয়। তবে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তার অসাধারন পারফরম্যান্সের  জন্য বাংলাদেশ  প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে  উঠেছিলো, এবং পরে হ্যাপি তার বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা তুলে নেয়।

রুবেল হোসেন ৭৩টি ওডিআই এবং ২৪টি টেস্টে টাইগারদের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

 

মাখায়া এনটিনি

মাখায়া এনটিনি দক্ষিণ আফ্রিকান ক্রিকেটারদের মধ্যে বেশ জনপ্রিয় ছিলেন।  তবে তিনি ১৯৯৮ সালে ইস্ট লন্ডনে একটি মহিলাকে ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হন। ধর্ষিতা দাবি করে যে, একটি ক্রিকেট স্টেডিয়ামের টয়লেটে এনটিনির দ্বারা তিনি ধর্ষিত হন। এনটিনিকে এক পর্যায়ে দোষী ঘোষণা করা হয় এবং ন্যাশনাল স্কোয়াড থেকে বাদ দেওয়া হয়।

মাখায়া এনটিনি প্রোটিয়াদের জন্য ১০১ টি টেস্ট এবং ১৭৩ টি ওডিআই খেলেছেন।

হরভজন সিং

হরভজন সিং ভারতীয় ক্রিকেটে সবচেয়ে বিতর্কিত খেলোয়াড়দের একজন। ভারতীয় ব্যাটসম্যান এস শ্রীশন্থকে আক্রমণ করে তিনি ব্যাপকভাবে সমালোচিত হন । ২00৮ সালে আইপিএল চলাকালে এই ঘটনাটি ঘটে যখন হরভজন সিংহের মুম্বাই ইন্ডিয়ানস কিংস ইলেভেন পাঞ্জাবের কাছে হেরে যায়। হরভজনের ঐ ঘটনার  ছবি বেশ বড় আকারে ছড়িয়ে পড়ে এবং এখনও তার কর্মজীবনে ঘটনাটি একটি কালো অধ্যায় হয়ে আছে।

 

ডেভিড ওয়ার্নার

ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যান জো রুটকে ঘুষি মারার জন্য দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর অস্ট্রেলিয়ার ড্যাশিং ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নারকে অনেক সমস্যায় পড়তে হয়। ২০১৩ সালে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় এই ঘটনা ঘটেছিল। ওয়ার্নার রুটের সঙ্গে একটি বিবাদে জড়িয়ে পড়েন এবং রুটের মুখের দিকে লক্ষ করে একটি ঘুষি মারেন।  সৌভাগ্যক্রমে ঘুষিটা রুটের মুখে লাগেনি এবং তিনি একটা বড় ইনজুরি থেকে বেচে যান। তদন্ত  রিপোর্টের পর, ওয়ার্নার দল থেকে বাদ পড়েছিলেন এবং শাস্তির সম্মুখীন হয়।

মানিক ইমদাদ (প্রতিবেদক), মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "ভদ্র ক্রিকেটারের অভদ্র কান্ড"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*