ইংল্যান্ডের সেরা ৫ উইকেটকিপার

ইংল্যান্ড বিশ্বের সব চেয়ে পুরাতন ক্রিকেট খেলুড়ে দেশ। সতেরশ শতাব্দী থেকে এই খেলার ইতিহাস এই দেশে। পাশাপাশি এই দেশ নিজ দেশ ও আন্তর্জাতিক  পর্যায়ে খুব ভালো কিছু ক্রিকেটার তৈরি করেছে।

এদের ভিতর এমন কিছু উইকেটকিপার রয়েছে যারা তাদের অসাধারন যোগ্যতার মাধ্যমে নিজের দেশকে তুলে ধরেছেন এবং সবার কাছে সবসময় স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।

জাতীয় দলগুলো সব সময়ই  দক্ষ এবং আস্থাভাজন উইকেট কিপার রাখে কিন্তু তার মধ্যেও কিছু উইকেট কিপার ব্যাতিক্রম এবং প্রশংসার দাবীদার। তাই এখানে ইংল্যান্ড ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে ভালো ৫ জন উইকেট কিপারকে তুলে ধরা হল।

বব টেইলরঃ

বন্ধুভাবাপন্ন স্বভাব এবং উপযুক্ত স্থানে সঠিক কথা বলতে পারার কারনে তার ডাক নাম “চ্যাট“ এবং বব টেইলর ছিলেন ইংল্যান্ডের একজন পরিপূর্ণ  উইকেটকিপার। যদিও তিনি ছিলেন ঐ সময়ের সেরা উইকেটকিপার তারপরও এলান নটের উপস্থিতি তার জন্য কঠিন হয়ে দাড়িয়ছিলো। কিন্তু যখন সে ওয়ার্ল্ড সিরিজ ক্রিকেট খেলতে যায় তখনই সুযোগটা সে কাজে লাগায়।

১৩ বছরের ক্যারিয়ারে তিনি ৫৭ টি টেস্ট ১৬৭ টি ক্যাচ ও ৭ টি স্ট্যাম্পিং করার    গৌরব অর্জন করেন।

ম্যাট প্রিয়র

ইংল্যান্ড টিমের অন্যতম আরও একজন ভালো উইকেরট কিপার ছিলেন ম্যাট প্রিয়র এবং স্ট্যাম্পের পেছনে তার উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। স্ট্যাম্পের পেছনে প্রিয়র খুব পরিপাটি ছিলেন এবং অন্য খেলোয়াড়দের সাথে মত বিনিময়ের মাধ্যমে ভালো সমন্বয় ঘটাতে পারতেন।

সর্বোপরি সম্প্রতি বছরগুলোতে তিনি ইংলান্ডের সেরা বোলারদের কিছু উইকেট নেন। গ্র্যাম সোয়ান, জেমস এন্ডারসন, স্টুয়ার্ড বর্ডের বোলিং বিভিন্ন ভাবে তাকে চ্যালেঞ্জের সম্মুখীন করেছিলো এবং তিনি তা প্রতিবারই সফলভাবে মোকাবেলা করেছেন।

সর্বমোট ৭৯ টি টেস্ট এ তিনি ২৪৩ টি ক্যাচ এবং ১৩ টি স্ট্যাম্পিং করেন।

অ্যালেক স্টুয়ার্ট

সবাই তাকে ভালো ব্যাটসম্যান হিসেবে জানে। ১৯৯০ এর দিকে যখন ইংলান্ডের খুব খারাপ সময় যাচ্ছিল তখন অ্যালেক স্টুয়ার্ট দলের হয়ে অসাধারন ভুমিকা পালন করেছেন এবং সেই সময়ে তিনি ছিলেন সেসময়ের সবচেয়ে ভালো উইকেটকিপার।

মোট ১৩৩ টি টেস্ট ম্যাচ খেলে তার সংগ্রহে ৮২ টি উইকেটসহ ২২৭ টি ক্যাচ ও ১৪ টি স্ট্যাম্পিং রয়েছে। একদিনের ক্রিকেটে তিনি ১৬৩ টি উইকেট নেন।

স্টুয়ার্ট খুবই নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় ছিলেন এবং স্ট্যাম্পের পিছন থেকে খেলাটাকে খুব ভালো বুঝতেন। এছাড়াও তিনি অত্যন্ত ফিট একজন ক্রিকেটার ছিলেন এবং ৪০ বৎসর বয়স পর্যন্ত ক্রিকেট খেলেন। স্টুয়ার্ট উইকেটের পিছনে থাকলে ক্যাচ পড়ার কথা কেউ চিন্তাই করতোনা।

গডফ্রে ইভান্স

১৯৪৬ থেকে ১৯৫৯ সালের এর মধ্যে গডফ্রে ইভান্স ইংল্যান্ডের হয়ে মোট ৯১টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন । সেসময়ে যে তার খেলা দেখেছে সেই বলেছে তিনি হলেন সর্বকালের সেরা  উইকেটকিপার। কাজেই কোনো বিতর্ক ছাড়াই তিনি একজন সেরা উইকেট কিপার। উইকেটের পিছনে তার অঙ্গভঙ্গি ছিল খুবই আগ্রাসী। তার অসাধারন মনোযোগের ক্ষমতা ছিল যার ফলে কঠিন ক্যাচটিও তার কাছে সহজ মনে হত।

৯১ টি টেস্ট ম্যাচ খেলে তিনি ১৭৩টি ক্যাচ  এবং ৪৬টি স্ট্যাম্পিং করেন।

এলান নট

ইংল্যান্ডের বড় বড় সকল উইকেট কিপারের মধ্যে এলান নটকে সবার উপরে রাখতে হবে। সে শুধুমাত্র ইংল্যান্ডেরই ভালো উইকেটকিপার ছিলেননা বরং পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো উইকেটকিপার ছিলেন।

তিনি মোট ৯৫টি টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন। ক্যাচ ধরেছেন ২৫০ টি ও স্ট্যাম্পিং করেন ১৯ টি।

মানিক ইমদাদ, প্রতিবেদক, মাঠের খেলা

 

 

Be the first to comment on "ইংল্যান্ডের সেরা ৫ উইকেটকিপার"

Leave a comment

Your email address will not be published.


*