মিসবাহ ও ইউনুসকে ছাড়া সংগ্রাম করবে পাকিস্তান, মনে করেন হেরাথ

হেরাথ মিসবাহ এবং ইউনুসের অবসরকে মাহেলা এবং সাংগার অবসরের সাথে তুলনা করেন।

বর্ষীয়ান এই স্পিনার মনে করেন যে দ্বি-পাক্ষিক এই সিরিজে পাকিস্তান তাদের এই দুই গ্রেট খেলোয়াড়কে ছাড়া যথেষ্ঠই ভুগবে। মিসবাহ এবং ইউনিস খান অবসর নেয়ার পর সরফরাজ আহমেদের নেতৃত্বে এটাই পাকিস্তানের প্রথম এসাইনমেন্ট।

ওয়েষ্ট ইন্ডিজ সিরিজের পর এটাই পাকিস্তানের প্রথম সফর। এর মাঝে তারা কেবল চ্যাম্পিয়ানস ট্রফিতে অংশ নিয়ে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ান হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিলো। এবং দীর্ঘদিন পর তারা পাকিস্থানে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে পুনর্জীবিত করার লক্ষ্যে ইনডিপেন্ডেনস কাপ নামে ব্যতিক্রমধর্মী এক সিরিজ আয়োজন করেছে।

অন্যদিকে শ্রীলংকান ক্রিকেটের মান অপ্রতাশিতভাবে হ্রাস পেতে থাকে, ঘরের মাটিতে ভারতের সাথে তিন ফরমেটেই  তারা হোয়াইট ওয়াশ হয়। এর আগে তারা ওডিআই সিরিজে জিম্বাবুয়ের সাথে ৩-২ ব্যবধানে পরাজিত হয়।

রাঙ্গানা হেরাথ মনে করেন পাকিস্তান তাদের ব্যাটিং লাইন আপে এ দুই অভিজ্ঞ খেলোয়াড়ের অভাব বোধ করবে। তিনি বলেন  শ্রীলংকা জাতীয় দল থেকে একই সাথে মাহেলা ও সাঙ্গাকারার অবসর হওয়ার ফলে দলে যে শূণ্যতা সৃষ্টি হয়েছে সেটা পূরন করা এখনও সম্ভব হয়নি। হেরাথ আশংকা করছেন এই দুজনকে ছাড়া পাকিস্তানও একই অবস্থার মধ্যে দিয়ে যাবে।

শ্রীলংকান এই গ্রেট বলেন, “এটা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া যে তাদের বিরুদ্ধে খেলতে হবে না। তারা তাদের দলের সবচেয়ে অভিজ্ঞ খেলোয়াড় ছিলো, স্পিনে তাদের অসাধারন দক্ষতা ছিলো। তাদের উইকেট সহজে নেয়া যেত না। এই দুই বিশ্বমানের খেলোয়াড়কে ছাড়া পাকিস্তানও আমাদের মত পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে যখন আমরা মাহেলা এবং সাঙ্গাকারাকে হারিয়েছি।“

তিনি আরো জানান, “এটা একটা প্রতিদ্বন্দিতামুলক সিরিজ হবে। যেখানে টেষ্টে তাদের অবস্থান ৬ এ এবং আমাদের অবস্থান ৭ এ। ভারত সিরিজের সময় আমাদের আত্ববিশ্বাসের যে ঘাটতি হয়েছিল তা কাটিয়ে ওঠার ভালো সুযোগ এসেছে। পাকিস্তানে কিছু ভালো খেলোয়াড় আছে এবং আমরা চ্যালেঞ্জ নিতে প্রস্তুত আছি।“

প্রতিবেদক: মানিক ইমদাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *